এমপি মনোরঞ্জন শীল গোপালের বিরুদ্ধে মামলা আদালতে খারিজ

0

শাহ্ আলম শাহী,স্টাফ রিপোর্টার,দিনাজপুর থেকেঃ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে করা কলেজের নাম পরিবর্তন এবং তার ছবির অবমাননা করার অভিযোগে দিনাজপুর-১ (বীরগঞ্জ-কাহারোল) আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপালের বিরুদ্ধে অভিযোগ মামলা খারিজ করে দিয়েছে আদালত

বীরগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের কার্যকরী সদস্য অজিবুল ইসলাম আদালতে অভিযোগ দায়ের করলে আজ সোমবার বিকেলে দিনাজপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত-২-এর বিচারক লুৎফর রহমান তা খারিজ করে দিয়েছেন।  যুবলীগের কার্যকরী সদস্য অজিবুল ইসলাম বুধবার আদালতে মামলা দায়েরের জন্য দু’টি অভিযোগ দায়ের করেন। আদালতে ওই দিনেই অজিবুল ইসলাম তার একটি অভিযোগ তুলে নেন। অপর অভিযোগটি পর দিন বৃহস্পতিবার শুনানির দিন ধার্য্য করেন আদালত। আদালত বৃহস্পতিবার তা পিছিয়ে আজ সোমবার শুনানির দিন ধার্য্য করেন। আজ বিকেলে সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপালের বিরুদ্ধে অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছে আদালত।

এমপির বিরুদ্ধে জাতির পিতার প্রতিকৃতি সংরক্ষণ ও প্রদর্শন আইন ২০০১ এর ৪ ধারা এবং দন্ডবিধি আইনের ৫০০/৫০১ ধারায় দুটি অভিযোগ দায়ের করা হয়।

আদালতের বিচারক সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট লুৎফর রহমান বৃহস্পতিবার দুপুরের আগে এই অভিযোগের শুনানির শুরু করলেও পরে তা দুপুরের বিরতি’র পর বিকেলে করেন। বিকেলে শুনানি স্থগিত করে শুনানীর দিন ধার্য করে সোমবার ।

পৃথক দু’টি অভিযোগে বলা হয়, স্থানীয় এমপি মনোরঞ্জন শীল গোপাল ক্ষমতার অপব্যবহার করে বীরগঞ্জ থানার ২নং পলাশবাড়ী ইউনিয়নে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু মহাবিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করে নিজ নামে করেন। একই সাথে তিনি বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত সাইন বোর্ড ইচ্ছাকৃতভাবে নামিয়ে অবমাননাকর কাজ করেন।

শুধু তাই নয়, এমপি মনোরঞ্জন শীল গোপাল বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত নামের সাইনবোর্ডটি কলেজের বাথরুমে অবজ্ঞা ও অবহেলিত করে ফেলে রাখেন।

এমপি জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের নাম পরিবর্তন করে ও বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত সাইনবোর্ড সরিয়ে তাকে খাটো করেছেন। বঙ্গবন্ধুর খ্যাতি ও সুনাম নষ্টের পাশাপাশি অসম্মান হয়েছে এবং মানহানিজনিত অপরাধ করেছেন বলে বাদী তার অভিযোগে উল্লেখ করেন।

print

Leave A Reply